• 87

দিনব্যাপি বর্ণিল আয়োজন

মহামায়া মন্দিরে বাঙলা বর্ষবরণ

মহামায়া মন্দিরে বাঙলা বর্ষবরণ

মহামায়া মন্দিরে বাঙলা বর্ষবরণ

জ্যামাইকার মহামায়া মন্দিরে আড়ম্বর আয়োজনে হয়ে গেল ‘বাংলা নববর্ষ উৎসব’। গত ১৭ এপ্রিল শনিবার দিনব্যাপি চলে বর্ণিল সব আয়োজন। অনুষ্ঠানের শুরুতে পায়েল সাহা গীতাপাঠ করেন। এরপর সংগঠনের সভাপতি রজ্ঞিত সাহা এবং সাধারণ সম্পাদক গোবিন্দ দাস শুভেচছা বক্তব্য রাখেন।


এরপর শুরু হয় সাংস্কৃতিক পর্ব। প্রথমেই অংশ নেয় যন্ত্র সংগীত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান পন্ডিত কিষান চন্দ্র মহারাজ তাল-তরঙ্গ। পরিচালনা করেন স্কুলের সত্ত্বাধীকারী তপন মোদক। গোবিন্দ দাসের উপস্থাপনা ও পরিচালনায় ছিলো বিনোদনমূলক মাগাজিন অনুষ্ঠান বৈশাখী আনন্দ। চলে গান, নৃত, অভিনয়, কৌতুক। অংশগ্রহণ করেন- তমা চক্রবর্তী, বিকাশ বালা, সহদেব তালুকদার, রামদাস ঘরামী, প্রদীপ ভট্টাচার্য, বাসন্তী দাস, প্রমিতা চক্রবর্তী, মেঘ দাস, শ্রেয়া চক্রবর্তী। ছোটদের  হাসির নাটিকা “জলের খোঁজে” অংশ নেন পূজা, ঈশান, প্রমিত, গ্লোরিয়া, পায়েল, জেসিকা ও প্রীয়ন্তি। পরিচালনা করেন-গোবিন্দ দাস। 




বিশ্বজিৎ সাহার তত্তাবধানে ও তমা চক্রবর্তীর উপস্থাপনায় চলে গানের অনুষ্ঠান সুরের লহরী। এতে ক্ষুদে শিল্পী প্রীতিষা ছাড়াও অংশ নেন ইমন, ঈশান এবং পরে গান পরিবেশন করে তমা চক্রবর্তী, মৌসুমী চক্রবর্তী, টুম্পা সাহা, প্রাঞ্জলী দাস, বিশ্বজিত সাহা, সবিতা, নিভা দত্ত, প্রদীপ্তা পোদ্দার, ত্রিনয়নি তালুকদার, মৌমিতা সাহা, শিউলী কুন্ডু, প্রদীপ ভট্টাচার্য প্রমূখ। নৃত্য পরিবেশন করেন- প্রীতু সাহা, প্রীয়ন্তী পাল, জেসিকা বানিয়া, অদ্বিতা, কংকীতা। শেষে সংগীতে অংশ নেন বাংলাদেশের ক্লোজআপ খ্যাত সংগীত শিল্পী রাজীব ব্যানার্জি।


অনুষ্ঠানটির সার্বিক ব্যবস্থাপনায় ছিলেন ড. অশোক সাহা, জয়ন্তী ভট্টাচার্য (সাংস্কৃতিক সম্পাদিকা) নির্মল পাল, গোপাল সাহা, প্রণব চক্রবর্তী, অমর দাস, রঞ্চিত দেব, গোবিন্দ জী বানিয়া। এছাড়াও ব্যবস্থাপনায় ছিলেন শম্ভু নাথ সাহা, রাজেন সাহা, রামদাস ঘরামী, সহদেব তালুকদার, বিকাশ বালা, মধুসূদন দত্ত, গৌতম সরকার, বিধান চন্দ্র পাল, স্বপন চক্রবর্তী, প্রদীপ ভট্টাচার্য বিশ্বজিত সাহা, তপন সরকারসহ আরও অনেকে। 

আপনার মতামত লিখুন :