• 91

বাঙালিদের ফ্রি কনসালটেশন সার্ভিস দিয়ে থাকি

বাঙালিদের ফ্রি কনসালটেশন সার্ভিস দিয়ে থাকি

এফএম-৭৮৬ এর নতুন আয়োজন ল এন্ড ইমিগ্রেশন। এই অনুষ্ঠানে বিশেষজ্ঞরা কথা বলেন ইউএসএ’র নাগরিকত্ব, আইন, এসাইলাম এপ্লিকেশনসহ এ সংক্রান্ত নানা বিষয়ে। এবারের পর্বে অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ ল সোসাইটির সাধারণ সম্পাদক এবং নিউইয়র্কের এএইচ ল ফার্মের ডিরেক্টর আরিফুল চৌধুরী। তার সঙ্গে কথা বলেছেন আরজে মোহনা


আমাদের বিশেষ আয়োজনে আপনাকে স্বাগত।

এফএম-৭৮৬ কে অসংখ্য ধন্যবাদ, এত সুন্দর একটি আয়োজন করার জন্য। একইসঙ্গে আমাকে আমন্ত্রণ করার জন্যও আপনাদেরকে ধন্যবাদ জানাই।


এএইচ ল ফার্মে কী ধরনের সার্ভিস দেওয়া হয়?

এই ফার্মে আমার সাথে যুক্ত আছেন অ্যাটর্নি আহসান হাবীব এবং আরো কয়েকজন বিশিষ্ট আইনজীবী। আমাদের এই ফার্মে সাধারণত রিয়েল এস্টেট, মর্টগেজ এবং এক্সিডেন্ট কেস নিয়ে কাজ করা হয়। ইমিগ্রেশন সম্পর্কিত কাজও হয়, যা করে থাকেন অ্যাটর্নি আহসান হাবীব। 


এক্সিডেন্ট কেসগুলো কীভাবে হ্যান্ডেল করেন?

এক্সিডেন্ট বিভিন্ন ধরনের হতে পারে- বাস এক্সিডেন্ট, কার এক্সিডেন্ট, কনস্ট্রাকশন এক্সিডেন্ট ইত্যাদি। সাধারণত আমরা গাড়ি এক্সিডেন্টকেই বড় এক্সিডেন্ট বলে ধরে থাকি। এছাড়াও আরো অনেক অ্যাক্সিডেন্ট আছে যেমন হসপিটালে একটি ভুল চিকিৎসার মাধ্যমে কোনো রোগী মারা গেলেন বা অন্য কোনো ক্ষতি হলো, এটিও কিন্তু একটা এক্সিডেন্ট। গাড়ি এক্সিডেন্ট হলে একটি ইন্সুরেন্স থাকে। এর আওতায় যে ব্যক্তির এক্সিডেন্ট হবে সেই আহত ব্যক্তিকে গাড়ির মালিক ৫০ হাজার ডলার দিতে বাধ্য থাকবে।


হাসপাতালে ভুল চিকিৎসার ক্ষেত্রে?

যদি হাসপাতালে ভুল চিকিৎসার জন্য রোগীর কোনো ক্ষতি হয় তাহলে তার জন্য একটি ইন্সুরেন্স করতে হয় সেটার  ক্ষতিপূরণ হসপিটালকে বহন করতে হয়। এছাড়াও আরও বিভিন্ন ধরনের কেস আছে তার মধ্যে একটি হলো ফল্ট কেস। ধরুন, বরফের সিজন অথবা যে কোনো সময়ে রাস্তার পাশে যদি পরিষ্কারও করে থাকে, তারপরও কেউ যদি সেখানে যাওয়ার সময় পড়ে গিয়ে ক্ষতিগ্রস্ত হয় সেটিও এক্সিডেন্টের আওতায় পড়ে। এসব ব্যাপারে আপনি  আইনের দ্বারস্থ হলে সুযোগ-সুবিধা পাবেন আর যদি কোনো ল ফার্মের সাথে যোগাযোগ রাখতে পারেন তাহলে আপনাদের জন্য আরো ভালো।


আপনাদের ফার্মের সাথে কীভাবে যোগাযোগ করা যাবে?

আমাদের ল ফার্মের ঠিকানা বাঙালির প্রাণকেন্দ্র নিউইয়র্কের জামাইকার ১৬৪/৩০, হিল সাইড এভিনিউ। আমরা আরও ২টি ব্রাঞ্চ খুলতে চাচ্ছি। সেটার অ্যাড্রেস আপনাদেরকে জানাবো। আমরাই একমাত্র নিউইয়র্কে বাঙালিদের জন্য কনসালটেশন ফ্রি সার্ভিস দিয়ে থাকি। যেকোনো ধরনের সমস্যায় পড়লে আমাদের সাথে যোগাযোগ করলে তা অতি দ্রæত সমাধান দিয়ে থাকি।




প্যানডেমিকের সময় অনেকেই হাউজ রেন্ট দিতে পারছেন না, এর কী সমাধান? 

নিউইয়র্কের গভর্নর একটি আইন পাস করেছেন। যদি কোনো ব্যক্তি রেন্ট দিতে না পারেন আগামী মে মাস পর্যন্ত কোন এভিকশন করা যাবে না। আর যদি কোনো ল্যান্ড লর্ড আপনার বাড়ির বিদ্যুৎ, গ্যাস, পানির কানেকশন বন্ধ করে দেয় তাহলে আপনি যদি কমপ্লেইন করেন তাহলে ওই ল্যান্ড লর্ডকে ৫ হাজার ডলার পর্যন্ত জরিমানা হবে।


অনেকে এসাইলাম ব্যাপারটা বোঝেন না। এ নিয়ে যদি বলতেন। 

কেউ যদি তার নিজ দেশে থাকতে রাজনৈতিকভাবে অথবা সা¤প্রদায়িকতার কারণে সিকিউর না হয় তাহলে ইউএসএ স্থায়ীভাবে বসবাস করার জন্য ইউএস গভর্নমেন্টকে অ্যাপ্লিকেশনের মাধ্যমে বসবাস করার যে সুযোগ পেতে পারে সেটিই হচ্ছে এসাইলাম। এর মাধ্যমে কোনো ব্যক্তি তার নিজের ইচ্ছাকৃতভাবে যে কোনো সময় দেশে ফিরতে পারবেন না যতদিন না পর্যন্ত সে ইউএস পাসপোর্ট পাচ্ছে। আর যদি পাসপোর্ট পাওয়ার আগেই দেশে আসতে চায় তাহলে তার সেই  গ্রীন কার্ড বাতিল হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে।


আমাদেরকে সময় দেওয়ার জন্য ধন্যবাদ।

আপনাদেরকেও ধন্যবাদ। পরবর্তীতে কখনো সুযোগ হলে আরো কয়েকজন এটর্নিকে নিয়ে আসবো কথা বলার জন্য। এফএম-৭৮৬ এর চলার পথের বন্ধু হয়ে থাকতে চাই আমরা।

আপনার মতামত লিখুন :