• 54

থটস অব রমাদান

কোরআন মানবজাতীর জন্য গাইডলাইন

কোরআন মানবজাতীর জন্য গাইডলাইন

থটস অব রমাদান অনুষ্ঠান

পবিত্র মাহে রমাদান উপলক্ষ্যে এফএম-৭৮৬’র নিয়মিত আয়োজন ইসলামের আলোকে বিশেষ আলোচনা অনুষ্ঠান থটস অব রমাদানের চতর্থ পর্ব অনুষ্ঠিত হয়েছে। কুষ্টিয়া ইসলামিক বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেসর ড. ইকবাল হোসাইনর সঞ্চালনায় এ পর্বটির বিষয়বস্তু ছিলো দৈনদ্দিন জীবনে কোরআন চর্চা। এতে অতিথি হিসেবে যুক্ত ছিলেন ব্রঙ্কসের পার্কচেষ্টার ইসলামিক সেন্টারের ইমাম ও খতিব মাওলানা ওবায়দুল হক এবং কুষ্টিয়া ইসলামিক বিশ্ববিদ্যালয়ের আল কোরআন ও ইসলামিক স্টাডিস বিভাগের প্রফেসর ড. লোকমান হুসাইন।


করোনায় মুসলিম কমিউনিটি কিভাবে রমজান শুরু করেছে? এমন প্রশ্নের উত্তরে পার্কচেষ্টার ইসলামিক সেন্টারের ইমাম ও খতিব মাওলানা ওবায়দুল হক বলেন, খতমে কোরআন শুরু হয়েছে। সাবধানতা অবম্বলন করেই চলছে ধর্মীয় কার্যক্রম। মাস্ক বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিতে কাজ করছে ভলেন্টিয়ার। গঠন করা হয়েছে কমিটি।


মাওলানা ওবায়দুল হক বলেন, নিউইয়র্কে রমজান এলে মনে হয় ঈদের আনন্দ। চলতে থাকে ইফতার-সেহরি-তারাবিসহ সবকিছু। ঘরের চেয়ে ইসলামিক সেন্টারে বেশি শান্তি পায় মুসলমানরা। ধর্মীয় শিক্ষার প্রসারে শিশু-বোনদের শিক্ষার ব্যবস্থা আছে। লাইব্রেরি আছে। তরুণদের জন্য বিভিন্ন রকমের পোগ্রাম আছে বলে উল্লেখ করেন পার্কচেষ্টার ইসলামিক সেন্টারের ইমাম ও খতিব।


দৈনদ্দিন জীবনে কোরআন চর্চার প্রভাব প্রসঙ্গে কথা বলেন ইসলামিক বিশ্ববিদ্যালয়ের আল কোরআন ও ইসলামিক স্টাডিস বিভাগের প্রফেসর ড. লোকমান হুসাইন। তিনি বলেন, কোরআন চর্চার পদ্ধতি-নিয়ম আছে। সেই গাইডলাইন থেকে আমরা দূরে চলে আসছি কিনা তা গভীরভাবে দেখতে দর্শকদের প্রতি অনুরোধ জানান তিনি। বলেন, কোরআন পুরো মানবজাতীর জন্য গাইডলাইন। রমজানে কোরআন এসেছে। তাই অন্য মাসের চেয়ে এই মাস গুরুত্বের দাবিদার বলেও মন্তব্য করেন ড. লোকমান হুসাইন।

আপনার মতামত লিখুন :