• 287

ফোবানার এবারের কনভেনশন হবে বিশ্বব্যাপি

ফোবানার এবারের কনভেনশন হবে বিশ্বব্যাপি

ফোবানার ৩৪তম কনভেনশন অনুষ্ঠিত হবে ২৮ ও ২৯ নভেম্বর

ফেডারেশন অব বাংলাদেশি অ্যাসোসিয়েশন ইন নর্থ আমেরিকা তথা ফোবানার ৩৪তম কনভেনশন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে ২৮ ও ২৯ নভেম্বর। এ নিয়ে এফএম-৭৮৬ এর মুখোমুখি হয়েছেন ফোবানার চেয়ারপারসন শাহ হালিম, নির্বাহী সাধারণ সম্পাদক ড. আহসান চৌধুরী এবং নির্বাহী সদস্য প্রায়লাল কর্মকার। তারা জানিয়েছেন, কীভাবে শুরুটা হয়েছিল ফোবানার, বর্তমানে কী কার্যক্রম পরিচালনা করা হচ্ছে এবং ভবিষ্যতে ফোবানাকে কোথায় নিয়ে যেতে চান। কথপোকথনের চুম্বক অংশ তুলে ধরা হলো- 


এফএম-৭৮৬: ফোবানার শুরুর গল্পটা জানতে চাই। ৩৩ বছর পেরিয়ে সংগঠনটির আজকের অবস্থান কেমন? 

শাহ হালিম: ১৯৮৭ সালে, আজ থেকে ৩৪ বছর আগে ফোবানার যাত্রা শুরু হয়েছিলো। এই সংগঠনের মাধ্যমে আমরা নর্থ আমেরিকাতে বাংলা ভাষা, বাংলা সংস্কৃতি ও ঐতিহ্য নিয়ে কাজ করি। প্রতিবছর বৃহৎ পরিসরে এর সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। বর্তমানে ৯৫টিরও বেশি সংগঠন যুক্ত আছে আমাদের সাথে। নর্থ আমেরিকার সর্ববৃহৎ ও সবচেয়ে পুরোনো সংগঠন ফোবানা, যা বাংলাদেশি আমেরিকানদের জন্য নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে।


এফএম-৭৮৬: করোনাকালে ৩৪তম কনভেনশন কীভাবে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে?

ড. আহসান চৌধুরী: এবারের প্রোগাম অনুষ্ঠিত হবে দুদিন ব্যাপী। যা দুপুর থেকে শুরু হয়ে গভীর রাত অবধি চলবে। তবে করোনার কারণে ফোবানার ৩৪ বছরের ইতিহাসে এবারই প্রথমবারের মতো ‘ভার্চুয়াল কনভেনশন’ অনুষ্ঠিত হবে। সংগঠনগুলোর কাছে আহবান করা হয়েছে, প্রত্যেকে ১০ মিনিটের ভিডিও ক্লিপ পাঠিয়ে আমাদের সাথে যুক্ত হবেন।


এফএম-৭৮৬: এবারের কনভেনশনে বাংলাদেশ থেকে কোন কোন তারকারা যুক্ত হচ্ছেন?

ড. আহসান চৌধুরী: এখন পর্যন্ত আমাদের সাথে সাইনআপ করেছেন বাংলাদেশের কয়েকজন জনপ্রিয় শিল্পী এবং কয়েকটি ব্যান্ড। শিল্পীদের মধ্যে আছেন ফাহমিদা নবী, বাপ্পা মজুমদার, ড. লীনা তাপসি খান, পারভেজ, সালাউদ্দিন আহমেদ, মেহরাব, পুতুল, রিদ্ধি বন্দোপাধ্যায়। এছাড়া বর্তমানে তরুণদের কাছে জনপ্রিয় ব্যান্ড ‘নাটাই’ থাকছে আমাদের সাথে। আরো কয়েকজন গুণী শিল্পী আমাদের সাথে যুক্ত হবেন বলে আশা করছি।


এফএম-৭৮৬: ভার্চুয়ালি হওয়াতে এবারের কনভেনশনে কি কোনো ভিন্নতা আসবে?

প্রিয়ালাল কর্মকার: প্রতিবছর আমাদের কালচারাল প্রোগ্রামে নাচ, গান, কবিতা আবৃতি, নাটকসহ আরো অনেক আয়োজন থাকে। এবারেও সেগুলো থাকছে তবে কিছুটা ভিন্নভাবে। আরেকটা বিষয় হলো- আমি মনে করি, ভার্চুয়াল কনভেনশন হওয়াতে অনুষ্ঠানের পরিধি কমছে না বরং বাড়ছে। এর ফলে ফোবানার কনভেনশন কিন্তু নির্দিষ্ট কোনো শহর বা দেশের মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকছে না। ছড়িয়ে পড়বে পৃথিবীর সর্বত্র।


এফএম-৭৮৬: করোনার সময় মানুষের কল্যাণে কতটুকু কাজ করেছে ফোবানা?

শাহ হালিম: করোনাকালে আমরা স্বাভাবিক সময়ের তুলনায় আরো বেশি কাজ করতে পেরেছি। অন্য সময়ের মতো আমাদেরকে সেমিনার নিয়ে ব্যস্ত থাকতে হয়নি। বাংলাদেশ থেকেও আমাদের সাথে কয়েকটা সংগঠন কাজ করছে। সবচেয়ে বড় সুবিধাটা হয়েছে, কোভিড সময়ে আমাদের কোনো এডমিনিস্ট্রেশন কস্ট হয়নি, তার ফলে পুরো টাকাটাই আমরা মানুষের কল্যাণে ব্যয় করতে পেরেছি।


এফএম-৭৮৬: প্রথমবারের ভার্চুয়াল কনভেনশনে কী পরিমান দর্শক প্রত্যাশা করছেন?

ড. আহসান চৌধুরী: আশা করছি বিগত যে কোনো কনভেনশনের চাইতে এবার দর্শক বেশি হবে। কারণ অনেক সংগঠনই আগে অংশগ্রগণ করতে চাইলেও পারতো না। আসা-যাওয়া, যাতায়াত ভাড়াসহ সবকিছু মিলে অনেক ব্যয়বহুল ব্যাপার ছিলো। এবার ভার্চুয়াল কনভেনশন হওয়াতে সবাই অংশগ্রহণের সুযোগ পাচ্ছে।

 

এফএম-৭৮৬: ফোবানার ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা কী?

শাহ হালিম: স্কলারশিপ পলিসি নিয়ে কাজ করবো। নর্থ আমেরিকা এবং বাংলাদেশে একই সাথে আমাদের নতুন প্রকল্প চালু হবে। আমরা ইয়ুথদের নিয়ে আরো বেশি কাজ করতে চাই। মেইনস্ট্রিম কমিটির মাধ্যেমে আরো নতুন নতুন মানব কল্যানমূলক কাজে যুক্ত হতে চাই।


এফএম ৭৮৬: সাধারণ দর্শকেরা কনভেনশনে কীভাবে যুক্ত হবেন?

প্রিয়লাল কর্মকার: আমাদের ওয়েবসাইট fobanaonline.com-এ দর্শকরা সকল আপডেট পেয়ে যাবেন। আমাদের ফেসবুক পেজে যুক্ত থাকলেও অনুষ্ঠানের আপডেট জানা যাবে। এছাড়া আমাদের সাথে মিডিয়া পার্টনার হিসেবে থাকছে এফএম-৭৮৬, টাইম২৪ টিভি, এনআরবিসি কানেক্ট টিভি। এসব মাধ্যমেও আমাদের অনুষ্ঠান সম্প্রচার হবে।


এফএম-৭৮৬: আমাদের দর্শক-শ্রোতাদের উদ্দেশে যদি কিছু বলার থাকে...

শাহ হালিম: আমাদের সংগঠনে যারা ডোনেশন করেন, সেচ্ছাসেবী হিসেবে কাজ করেন, আমাদেরকে বিভিন্নভাবে সাহায্য করেন, তাদের সবাইকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি। এফএম-৭৮৬ কে ধন্যবাদ আমাদের কার্যক্রম প্রচার করার জন্য। শেষবেলায় একটা কথা বলতে চাই, আপনাদের ভালোবাসা আর বিশ্বাস নিয়ে ফোবানা এগিয়ে যেতে চায় আরো অনেক দূরে।

আপনার মতামত লিখুন :