• 449

কুইন্সে ‘হেইট ক্রাইমে’র বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স

কুইন্সে ‘হেইট ক্রাইমে’র বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স

কুইন্সে ‘হেইট ক্রাইমে’র বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স

‘হিজাব পরিধান করা অধিকার, অনুগ্রহ নয়’ এই শ্লোগানকে সামনে রেখে নিউইর্কের কুইন্সে অনুষ্ঠিত হয়ে গেলো হিজাব অধিকারবিষয়ক একটি অনুষ্ঠান। ১৫ নভেম্বর অনুষ্ঠিত হওয়া ওই আয়োজনে উপস্থিত ছিলেন ছিলেন নির্বাচিত জনপ্রতিনিধি, কমিউনিটির বিভিন্ন স্তরের সংগঠক, ফেইথ লিডারসহ বিশিষ্টজনরা। বক্তারা হিজাব পরিধানের বিরোধিতা তথা হেইট ক্রাইমের বিরুদ্ধে ‘জিরো টলারেন্স’ ঘোষণা করেন। 


সাউথ এশিয়ান ফান্ড ফর এডুকেশন, স্কলারশিপ এন্ড ট্রেইনিং তথা সাফেস্ট-এর নির্বাহী পরিচালক মাজেদা উদ্দিনের পরিচালনায় পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াত করেন মসজিদ মিশনের ইমাম হাফেজ রফিকুল ইসলাম। স্বাগত বক্তব্য রাখেন ডিস্ট্রিক লিডার ও শ্রমবিষয়ক আইনজীবী ইথান ফেল্ডার। অনুষ্ঠান উপস্থাপনার দায়িত্বে ছিলেন চ্যাপলিন সিস্টার জামিলা।


অনুষ্ঠানের শুরুতে বক্তব্য দিতে গিয়ে কুইন্স বোরো প্রেসিডেন্ট শেরন লি বলেন, আমাদের বোরোতে হেইট ক্রাইমের কোনো স্থান নেই। এ ব্যাপারে বরাবরের মতোই আমরা জিরো টলারেন্স নীতি অবলম্বন করবো। মনে রাখতে হবে, আমরা সবাই একটা পরিবারের মতো।



ইলেক্ট কুইন্স বোরো প্রেসিডেন্ট ডোনাভান রিচার্ড বলেছেন, একটা নির্দিষ্ট আইনের ওপর পুরো আমেরিকা পরিচালিত হয়। এই আইন সবার জন্য, চাই সে মুসলমান, হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রীস্টান কিংবা ইহুদ- যে ধর্মেরই হোন না কেন? তাই নির্দিষ্ট কোনো ধর্মের প্রতি বিদ্বেষ কাম্য নয়।


জ্যামাইকা মুসলিম সেন্টারের ডিরেক্টর ইমাম শামসি আলী বলেন, এই দেশের সংবিধানের জন্য আমরা গর্বিত। আমাদেরকে মনে রাখতে হবে, প্রত্যেক আমেরিকানের জন্য এই একই সংবিধান, যা আমাদের সবার নিরাপত্তা বিধান করছে। এমন আয়োজনের জন্য মাজেদা উদ্দিনকে ধন্যবাদ।


এড্রিয়ানা এডামস বলেন- আমরা সৌহার্দ্য, সম্প্রীতি আর ভালোবাসার বন্ধনে একত্রিত হয়েছি, যার মধ্যে কোনো হেইট ক্রাইম থাকতে পারে না। আমরা সবাই আমেরিকান, তার মধ্যে যদি কোনো দুষ্ট লোক থেকে থাকে তাহলে তাকে চলে যেতে হবে। আমাদের জন্ম ভালোবাসা আর ঐক্যের জন্য।


অ্যাসেম্বলি উইম্যান ইলেক্ট জেনিফার রাজকুমার বলেন, আমার ডিস্ট্রিক্টে কোনো ইসলামফোবিয়া থাকতে পারবে না। যারা এই ফোবিয়ায় বিশ্বাস করে তারা এখানে তাদের কোনো জায়গা নেই। ট্রাম্প সরকারের আমলে হোয়াইট হাউসে বিভিন্ন দেশের মুসলমানদের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে। আশাকরি নতুন প্রেসিডেন্ট সেই নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করে নেবেন।


অ্যাসেম্বলি উইম্যান জেসিকা গঞ্জালেস বলেন, আমি এমন একটি এলাকার প্রতিনিধিত্ব করি, যেখানে বিভিন্ন জাতিগোষ্ঠির মানুষ বসবাস করেন। তাই এমন একটি এলাকা তথা কুইন্সে ইসলামফোবিয়ার কোনো জায়গা নেই। এ ব্যাপারে সবাইকে আরো সতর্ক হতে হবে।


অ্যাসেম্বলি ম্যান ডেভিড উইপ্রিন বলেন, ২০১২ সালে আমি গার্ব বিল উত্থাপন করেছি। শুধু তাই নয়, পুলিশে কর্মরত মুসলিম নারীরা যাতে চাইলে হিজাব পরিধান করতে পারেন সেজন্যও একটি বিল উত্থাপন করেছি আমি। তাই এটা নিশ্চিত করছি যে, যে কোনো সঙ্কটে আমরা মুসলিম ভাইবোনদের পাশে আছি।


জুইস বুখারিয়ান সেন্টারের প্রতিনিধি ডেভিড আর্নব বলেন, আমরা অন্য ধর্মের হতে পারি কিন্তু আমাদের মধ্যে কোনো প্রভেদ কিংবা বিভেদ নেই। আমরা মুসলমানদের ওপর নির্যাতন মেনে নেবো না। সম্প্রতি হেইট ক্রাইমের যে ঘটনা ঘটেছে, আমরা তা পর্যবেক্ষণ করছি।


বাংলাদেশ আমেরিকান সোসাইটির প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ আলী বলেন, আমরা সবাই এক ও অভিন্ন। কারো বিরুদ্ধে যদি কোনো অন্যায় হয় তাহলে তা আমরা কোনোভাবেই মেনে নেবো না। সবাই মিলে একসঙ্গে সেই অন্যায় রুখে দেওয়া হবে।


বিল্ডিং আওয়ার মুভমেন্ট এর ফাউন্ডার ফাহাদ সোলায়মান বলেন, হেইট ক্রাইমের প্রতিবাদ করতে আমরা এখানে একত্রিত হয়েছি। যার যা ধর্ম কিংবা আচার-অনুষ্ঠান সে যেনো তা স্বাধীনভাবে পালন করতে পারে, যে কোনো উপায়ে তা নিশ্চিত করতে হবে।


মাল্টি কালচারাল প্রজেক্ট মার্ক মের এলেন বলেন, যারা ঘৃণা ছড়ায় তাদের বিরুদ্ধে আমাদেরকে সাবধান হতে হবে। তাদের ঘৃণার বদলে আমরা ভালোবাসা বিলিয়ে দিতে চাই। 


বাংলাদেশি আমেরিকান অ্যাডভোকেসি গ্রুপের প্রেসিডেন্ট ইঞ্জিনিয়ার কামাল  ভুইয়া বলেন, আমরা বেশ আগে থেকেই হেইট ক্রাইমের বিরুদ্ধে কিংবা হিজাবের পক্ষে কাজ করে আসছি। ভবিষ্যতেও আমরা এ ব্যাপারে আইনি কাঠামোর মধ্যে কাজ করে যাবো।


কমিউনিটি লিডার ফখরুল ইসলাম দেলোয়ার বলেন, হেইট ক্রাইম মোকাবেলায় আমাদেরকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। আমরা সবাই মিলে এই অন্যায়ের বিরুদ্ধে লড়াই করে যাবো।


সবার বক্তব্য শেষে দোয়া ও মোনাজাত পরিচালনা করেন ইমাম শামসি আলী। অনুষ্ঠানটি সম্প্রচার করে আইটিভি ইউএসএ এবং এফএম-৭৮৬।


অনুষ্ঠান আয়োজনের সহযোগিতায় ছিলো ইন্টারফেইথ সেন্টার অব ইউএসএ, জ্যামাইকা মুসলিম সেন্টার, এফএম-৭৮৬, আইটিভি ইউএসএ, ইকনা কাউন্সিল ফর সোশ্যাল জাস্টিস, বাংলাদেশি আমেরিকান সোসাইটিসহ আরও বেশ কয়েকটি প্রতিষ্ঠান।

আপনার মতামত লিখুন :